|

করোনা আপডেট
আক্রান্ত

১,৫৬৮,৮৫৭

সুস্থ

১,৫৩২,৬৯৫

মৃত্যু

২৭,৮৪৭

  • জেলা সমূহের তথ্য
  • ব্রাহ্মণবাড়িয়া ২,৭১৪
  • বরগুনা ১,০০৮
  • বগুড়া ৯,২৪০
  • চুয়াডাঙ্গা ১,৬১৯
  • ঢাকা ১৫০,৬২৯
  • দিনাজপুর ৪,২৯৫
  • ফেনী ২,১৮০
  • গাইবান্ধা ১,৪০৩
  • গাজীপুর ৬,৬৯৪
  • হবিগঞ্জ ১,৯৩৪
  • যশোর ৪,৫৪২
  • ঝালকাঠি ৮০৪
  • ঝিনাইদহ ২,২৪৫
  • জয়পুরহাট ১,২৫০
  • কুষ্টিয়া ৩,৭০৭
  • লক্ষ্মীপুর ২,২৮৩
  • মাদারিপুর ১,৫৯৯
  • মাগুরা ১,০৩২
  • মানিকগঞ্জ ১,৭১৩
  • মেহেরপুর ৭৩৯
  • মুন্সিগঞ্জ ৪,২৫১
  • নওগাঁ ১,৪৯৯
  • নারায়ণগঞ্জ ৮,২৯০
  • নরসিংদী ২,৭০১
  • নাটোর ১,১৬২
  • চাঁপাইনবাবগঞ্জ ৮১১
  • নীলফামারী ১,২৮০
  • পঞ্চগড় ৭৫৩
  • রাজবাড়ী ৩,৩৫২
  • রাঙামাটি ১,০৯৮
  • রংপুর ৩,৮০৩
  • শরিয়তপুর ১,৮৫৪
  • শেরপুর ৫৪২
  • সিরাজগঞ্জ ২,৪৮৯
  • সিলেট ৮,৮৩৭
  • বান্দরবান ৮৭১
  • কুমিল্লা ৮,৮০৩
  • নেত্রকোণা ৮১৭
  • ঠাকুরগাঁও ১,৪৪২
  • বাগেরহাট ১,০৩২
  • কিশোরগঞ্জ ৩,৩৪১
  • বরিশাল ৪,৫৭১
  • চট্টগ্রাম ২৮,১১২
  • ভোলা ৯২৬
  • চাঁদপুর ২,৬০০
  • কক্সবাজার ৫,৬০৮
  • ফরিদপুর ৭,৯৮১
  • গোপালগঞ্জ ২,৯২৯
  • জামালপুর ১,৭৫৩
  • খাগড়াছড়ি ৭৭৩
  • খুলনা ৭,০২৭
  • নড়াইল ১,৫১১
  • কুড়িগ্রাম ৯৮৭
  • মৌলভীবাজার ১,৮৫৪
  • লালমনিরহাট ৯৪২
  • ময়মনসিংহ ৪,২৭৮
  • নোয়াখালী ৫,৪৫৫
  • পাবনা ১,৫৪৪
  • টাঙ্গাইল ৩,৬০১
  • পটুয়াখালী ১,৬৬০
  • পিরোজপুর ১,১৪৪
  • সাতক্ষীরা ১,১৪৭
  • সুনামগঞ্জ ২,৪৯৫
ন্যাশনাল কল সেন্টার ৩৩৩ | স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ | আইইডিসিআর ১০৬৫৫ | বিশেষজ্ঞ হেলথ লাইন ০৯৬১১৬৭৭৭৭৭ | সূত্র - আইইডিসিআর | স্পন্সর - একতা হোস্ট
মুজিববর্ষে পৌরবাসীর জন্য মেয়র সৈয়দ রফিকুল ইসলামের উপহার “গৌরীপুর পৌর মিনি পার্ক”

প্রকাশিতঃ ১১:৩৪ পূর্বাহ্ন | মার্চ ১৯, ২০২০

মুজিববর্ষে পৌরবাসীর জন্য মেয়র সৈয়দ রফিকুল ইসলামের উপহার “গৌরীপুর পৌর মিনি পার্ক”

আরিফ আহম্মেদঃ ময়মনসিংহ গৌরীপুর পৌরসভায় দুইবারের নির্বাচিত জননন্দিত মেয়র সৈয়দ রফিকুল ইসলাম। তিনি বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ, গৌরীপুর পৌর শাখার সভাপতি। ২০১১ সালে ১ম বার বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়ে গৌরীপুর পৌরসভার দায়িত্বভার গ্রহণ করেন। এরপূর্বে তিনি পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডের জনপ্রিয় কাউন্সিলর ছিলেন। তাঁর পিতা মরহুম সৈয়দ আবু সাঈদ ছিলেন একই ওয়ার্ডের জনপ্রিয় কমিশনার ও প্যানেল চেয়ারম্যান-১ । বিপদ-আপদে গরিব অসহায় মানুষের পাশে থাকার কারণে তিনি ছিলেন সাধারণ মানুষের কাছে আস্থার প্রতীক, স্থানীয় শালিশ-দরবারে শোষিত মানুষের পক্ষে ন্যায় বিচারে  ছিলেন দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। যে কারণে সৈয়দ রফিকুল ইসলাম ছোটবেলা থেকেই পারিবারিক বলয়ের মাঝেই সামাজিক দ্বায়িত্ববোধ নিয়ে গড়ে উঠেছেন। যা বর্তমানে তাঁর প্রতিটি কাজে দৃশ্যমান।

সৈয়দ রফিকুল ইসলাম প্রথম মেয়াদের মাত্র দুইবছরের মাথায় ২০১৩ সালের ৭ নভেম্বর গৌরীপুর পৌরসভাকে দ্বিতীয় শ্রেণি থেকে প্রথম শ্রেণিতে উন্নীত করে ব্যাপক প্রশংসা অর্জন করেন। ২০১৬ সালে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী হিসাবে নৌকা প্রতীক নিয়ে কঠিন প্রতিদ্বন্দ্বিতার মাঝেও বিপুল ভোটে দ্বিতীয়বার বিজয় অর্জন করেন তিনি। এসময় ভোট কেন্দ্রে ব্যাপক নারী ভোটারদের উপস্থিতি ছিল লক্ষ্যনীয়। সুধীজনেরা মনে করেন, তাঁর জনবান্ধব কর্মপরিকল্পনা, বন্ধুসুলভ আচরণ ও সকল বিষয়ে সার্বক্ষণিক নজরদারীর জন্যই এই জনমত।

এছাড়াও গৌরীপুর পৌরসভার প্রতিটি কাজ তিনি করছেন মাস্টার প্ল্যান অনুযায়ী। যে কারণে জনগণ সরাসরি এসব কাজের সুফল পাচ্ছে। ইতোমধ্যে বেশ কিছূ কাজ তিনি সম্পন্ন করেছেন, চলমান রয়েছে আরো অনেক প্রকল্প, তেমনি একটি জনগুরুত্বপূর্ণ প্রকল্প “গৌরীপুর পৌর মিনি পার্ক”।

গৌরীপুর গণপাঠাগার-এর সম্মুখে আর কে সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের অনন্ত সাগরের পূর্ব পাড়ে নির্মাণ হচ্ছে এই পার্ক। কর্মব্যাস্ত নগর জীবনে দিন দিন ব্যাস্ততম শহরে পরিনত হচ্ছে গৌরীপুর পৌরসভা। কমে আসছে নাগরিকদের স্বস্তির নি:শ্বাস পেলার জায়গা। গৌরীপুর পৌরবাসীর দীর্ঘদিনের স্বপ্ন ও দাবী একটি পাকের্র। এ পার্ক নির্মাণের মাধ্যমে মেয়র নাগরিকদের সে স্বপ্ন পূরণ করলেন।

মুজিববর্ষে পৌরবাসীর জন্য মেয়র সৈয়দ রফিকুল ইসলামের উপহার “গৌরীপুর পৌর মিনি পার্ক”

মেয়র সৈয়দ রফিকুল ইসলাম কালের বাংলাদেশকে জানান- আমার নির্বাচনী ইশতেহারে গৌরীপুর পৌর এলাকায় একটি পার্ক নির্মাণের প্রতিশ্রতি ছিল, ইচ্ছা থাকার পরও উপযুক্ত জায়গার না থাকার কারণে বড় আকারের পার্ক নির্মাণ সম্ভব হয়নি, তবে আমি প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী কথা রেখেছি- সর্বকালের শ্রেষ্ঠবাঙ্গালী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বর্ষে গৌরীপুর পৌরবাসীকে উপহার হিসাবে নিমতলী “গৌরীপুর পৌর মিনি পার্ক” নির্মাণ করলাম। এর মাধ্যমে গৌরীপুরে পার্কের যাত্রা শুরু হলো, আগামীদিনে অবশ্যই বৃহৎ পরিকল্পনা নিয়ে কাজ শুরু করবো।

গৌরীপুর পৌরসভায় ব্যাপক উন্নয়নমুলক প্রকল্প গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করছেন। তমধ্যে উল্লেখ্যযোগ্য হলো-

বাস্তবায়িত প্রকল্পসমূহঃ
বর্তমানে পৌরএলাকার বেশিরভাগ সড়ক নির্মাণ হচ্ছে দীর্ঘ মেয়াদী ও টেকসই আরসিসি দ্বারা। শহরের অত্যন্তগুরুত্বপূর্ণ একটি সড়ক- নিমতলী সুরেশ কৈরী সড়ক থেকে উত্তর দিকে শালীহরগামী সড়ক পর্যন্ত নতুন আরসিসি রাস্তাটি। প্রয়োজন থাকা স্বত্বেও নানা জটিলতার কারণে বিগত ৫০ বছর যাবত চেষ্টা করেও রাস্তাটি নির্মাণ সম্ভব হচ্ছিল না।

মেয়র সৈয়দ রফিকুল ইসলাম উদ্যোগী হয়ে সকল প্রতিবন্ধকতা দূর করে রাস্তাটি আরসিসি দ্বারা নির্মাণ করেন। বর্তমানে পশ্চিম-উত্তরাঞ্চলের গৌরীপুর মহিলা কলেজ, আর কে সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের বেশিরভাগ শিক্ষার্থীরা এ রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করেন। তাছাড়া রাস্তাটি প্রকৃতির মুক্তপরিবেশে থাকায় বিকাল বেলায় স্বাস্থ্য সচেতন নাগরিকরা বিশুদ্ধ বাতাস সেবন করতে আসেন এ সড়কে।

পৌরসভার আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ সড়ক বাড়ীওয়ালাপাড়া শালীহরগামী সড়ক থেকে উত্তর দিক হয়ে পশ্চিম দিকে রেল-লাইন পর্যন্ত ও পূর্বদিকে শহীদ মঞ্জু সড়ক পর্যন্ত রাস্তাটি। এ সড়কটি আরসিসি দ্বারা নির্মাণ করা হয়েছে। এছাড়াও পৌরসভার পার্শ্ব দিয়ে খেলার মাঠগামী আরসিসি রাস্তা নির্মাণ, ঝলমল সিনেমা হল রোডের বক্স কালভার্ট হতে উত্তর দিকে স্টেশন রোড পর্যন্ত বক্স ড্রেন নির্মাণ, শহীদ মঞ্জু সড়ক হতে পূর্ব দিকে বক্স ড্রেন পর্যন্ত বক্স ড্রেন নির্মাণ, গুজিখাঁ কেরামতিয়া মসজিদগামী পৌরএলাকার সীমা পর্যন্ত কার্পেটিং রাস্তা নির্মাণ, বৈদ্যুতিক খুটি সম্প্রসারণ এবং বৈদ্যুতিক খুটিতে আধুনিক সেডসহ এনার্জি লাইট স্থাপন, পৌরএলাকার জলাবদ্ধতা নিরসনের জন্য বিভিন্ন স্থানে বক্স কালভার্ট নির্মাণ, টেকসই নির্মাণের স্বার্থে বিভিন্ন ড্রেন আরসিসি করণ সম্পন্ন হয়েছে।

মেয়র সৈয়দ রফিকুল ইসলাম আরো কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ কাজ করেছেন, যা জনস্বার্থে অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। তমধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো- দৈনিক কাঁচা বাজারটি শহরের মূলরাস্তার পাশ থেকে সরিয়ে গৌরীপুর কোণাপাড়া সড়কের পাশে গরুহাটায় স্থানান্তর, এতে শহরের যানজট অনেকটাই নিরসন হয়েছে, যা ব্যাপক প্রশংসা কুড়িয়েছে। তরকারি মহালসহ বাজার হেরিংবন করন, মাছ বাজার সেড নির্মাণ, রাস্তার উপর থেকে সুইপার কলোনী স্থানান্তর করে মন্দীরসহ প্রতিস্থাপন করণ, কোনাপাড়াগামী সড়ক থেকে উত্তর দিকে মাছুয়াকান্দাগামী রাস্তা আরসিসি করণ, কোনাপাড়াগামী সড়ক থেকে দক্ষিণদিকে ঘোষপাড়া পর্যন্ত আরসিসি রাস্তা ও ড্রেন নির্মাণ।

কোনাপাড়াগামী সড়ক থেকে শ্মশ্বান হয়ে ঘোষপাড় পযন্ত আরসিসি রাস্তা নির্মাণ, কেন্দ্রেীয় গোরস্থান ও জান্নাতুলবাকী গোরস্থান এবং শ্মশানের বিভিন্ন উন্নয়ন কাজ চলমান, পৌরএলাকার যানযট নিরসনে গোলচত্ত্বর স্থাপন ও অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ,এছাড়াও ৮কি.মি.পানি সাপ্লাই পাইপ লাইন সংস্কার ও সম্প্রসারণসহ আরও ০৩ (তিন)টি নতুন (সাবমার্চেবুল) পাম্প হাউজ স্থাপন, শতভাগ স্যানিটেন যুক্ত পৌর শহর গড়ার স্বার্থে ৩ হাজার টয়লেট বিনামূল্যে বিতরণ, সুপেয় পানির জন্য ২৫০০টি অগভীর টিউবওয়েল বিতরণ, গৌরীপুর পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে স্বাস্থ্যসম্মত ০১(একটি), গোবিন্দবাড়ি জিওর মন্দিরে ১টি পায়খানা স্থাপন এছাড়াও জনগুরুত্বপূর্ণ স্থানে ০৪টি স্বাস্থ্যসম্মত পায়খানা স্থাপন করণ, বাসটার্মিনালের উন্নয়ন ও গাড়ী ধৌয়ার রেম তৈরী করণ, সরকারি কালেজসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও মসজিদে অনুদান প্রদান।

পৌরসভার মেয়র হিসাবে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ কাজের বাইরেও তিনি ব্যাক্তি উদ্যোগে প্রতিষ্ঠা করেছেন বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও সংগঠন। গৌরীপুরের সুধীসমাজের দীর্ঘদিনের দাবী একটি গণপাঠাগারের। ২০১৭ সালে তিনি গৌরীপুর নিমতলী এলাকায় “গৌরীপুর গণপাঠাগার” প্রতিষ্ঠা করেন। তিনি সৈয়দ আবু সাঈদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জমিদাতা, গৌরীপুর ২নং রেল গেইট সংলগ্ন স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠান মদিনাতুল মাদ্রাসার জামে মসজিদ প্রতিষ্ঠা ও জমিদাতা। এছাড়াও বিভিন্ন স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসায় তিনি নিয়মিত আর্থিক সহযোগিতা করছেন।

মুজিববর্ষে পৌরবাসীর জন্য মেয়র সৈয়দ রফিকুল ইসলামের উপহার “গৌরীপুর পৌর মিনি পার্ক”

চলমান ও পরিকল্পনাধীন প্রকল্পসমূহঃ
আধুনিক ০৩ (তিন) তলা পৌর ভবন নির্মাণ, বাজার এলাকায় আরসিসি ড্রেন নির্মাণসহ ফুটপাত নির্মাণ, বালুয়াপাড়া মোড় থেকে দক্ষিণদিকে রামগোপালপুরগামী রাস্তার সতিষা খালপাড় পৌর শেষ সীমানা পর্যন্ত আরসিসি রাস্তা নির্মাণ এবং দক্ষিণদিকে পৌর শেষ সীমানা পর্যন্ত রাস্তা নির্মাণ, পূর্বদাপুনিয়া মসজিদের মোড় থেকে পূর্ব দিকে খাল পর্যন্ত আরসিসি ড্রেন নির্মাণ, বালুয়াপাড়া মোড় থেকে পূর্ব দিকে বালুয়া খাল পর্যন্ত আরসিসি ড্রেন নির্মাণ, রামগোপালপুরগামী রাস্তায় আর্মি রফিকের বাড়ী থেকে উত্তর দিকে বালুয়াপাড়া মোড় হয়ে দক্ষিণদিকে খাল পর্যন্ত আরসিসি ড্রেন নির্মাণ, সাততী গামী সড়ক থেকে উত্তর দিকে কেন্দ্রীয় গোরস্থান পর্যন্ত আরসিসি রাস্তা নির্মাণ, শিশুদের বিনোদনের জন্য পৌর পার্ক নির্মাণের কাজ চলমান, গৌরীপুর সরকারি কলেজের সামনে গোলকপুর ব্রীজটি সম্প্রসারণ, এছাড়াও বিভিন্ন অনুষ্ঠান পরিচালনার জন্য পৌর অডিটরিয়াম নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে।

বৃহৎ পরিকল্পনার মাঝে রয়েছে- জনাব আব্দুল খালেক মুন্সি সাহেবের বাড়ীর সম্মুখের রেল ব্রীজ হতে পূর্ব দিকে নয়াপাড়া ও আরকে সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় হয়ে বালুয়াপাড়া খাল ও কলাবাগান মেহগনি খাল খনন, ভালুকা কুড়পাড় হতে স্টেশন মসজিদের মোড় হয়ে ভালকি পর্যন্ত খাল খননের কাজ।

গৌরীপুর পৌরসভার মেয়র সৈয়দ রফিকুল ইসলাম বলেন- চলমান কাজগুলো সঠিক ও পরিকল্পনামাফিক বাস্তবায়নের স্বার্থে তিনি তৃতীয় বারের মতো গৌরীপুর পৌরসভার নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন। উন্নয়নের স্বার্থে গৌরীপুর পৌরবাসীকে আগামীদিনেও পাশে থাকার আহবান জানান তিনি।

দেখা হয়েছে: 2491
বিশ্বে করোনা ভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
১,৫৬৮,৮৫৭
সুস্থ
১,৫৩২,৬৯৫
মৃত্যু
২৭,৮৪৭
সূত্র: আইইডিসিআর

বিশ্বে

আক্রান্ত
২৪৪,৬৭৫,৩২৭
সুস্থ
মৃত্যু
৪,৯৬৯,১৪৫
ফেইসবুকে আমরা

সর্বাধিক পঠিত
এই মাত্র প্রকাশিত
সম্পাদকঃ আরিফ আহম্মেদ
মোবাইলঃ ০১৭৩৩-০২৮৯০০
প্রকাশকঃ উবায়দুল্লাহ রুমি
বার্তা বিভাগ মোবাইলঃ ০১৭১২-৬৭৮৫৫৮
ই-মেইলঃ [email protected]
অস্থায়ী কার্যালয়ঃ ১নং সি. কে ঘোষ রোড, ৩য় তলা, ময়মনসিংহ।
(৭১ টিভির আঞ্চলিক কার্যালয়)।

The use of this website without permission is illegal. The authorities are not responsible if any news published in this newspaper is defamatory of any person or organization. Author of all the writings and liabilities of the author
error: Content is protected !!