|

রায়ে ন্যায়বিচার পেয়ে খুশি মেয়র অনুসারীরা

প্রকাশিতঃ ১১:৩২ অপরাহ্ন | অক্টোবর ১০, ২০২২

গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি।
ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক মাসুদুর রহমান শুভ্র হত্যা মামলার রায় সোমবার (১০ অক্টোবর) ঘোষণা করেছেন ঢাকা দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালের ৩ নম্বর আদালতের বিচারক মনির কামাল।

এ রায়কে কেন্দ্র করে সকাল থেকেই গৌরীপুরে নেয়া হয়েছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সর্বোচ্চ সতর্কতা। পৌর শহরের মোড়ে মোড়ে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েনসহ র্যাবের টহল লক্ষ করা গেছে।

এ মামলার অন্যতম আসামি ছিলেন গৌরীপুর পৌরসভায় একাধিকবার নির্বাচিত মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি সৈয়দ রফিকুল ইসলাম ও তার ছোট দুই ভাই সৈয়দ তৌফিকুল ইসলাম ও সৈয়দ মাজাহারুল ইসলাম জুয়েল। রায়ে তাঁরা তিনজনই খালাস পেয়েছেন। এতে মেয়র অনুসারীরা ন্যায়বিচার পেয়ে খুশিতে উচ্ছ্বসিত হলেও ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে শুভ্রর পরিবার।

রায়ে সাত জনের মৃত্যুদণ্ড, তিন জনের যাবজ্জীবন ও নয় জনকে খালাস দিয়েছেন বিচারক।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- ১নং মইলাকান্দা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা রিয়াদ উজ্জামান রিয়াদ, গৌরীপুর পৌর ছাত্রদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাকিব আহমেদ রেজা, উত্তর জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সদস্য মোজাম্মেল হক, চৌকিদার খাইরুল ইসলাম, মাঈন উদ্দিন, রুহুল আমিন ও শরীফুল ইসলাম নাঈম।

যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- রিয়াদের ছোট ভাই মাসুদ পারভেজ কার্জন, ছাত্রদলকর্মী শরীয়তউল্লাহ ওরফে সুমন ও যুবদলকর্মী রাসেল মিয়া।

খালাস পাওয়া অন্য আসামিরা হলেন- ছাত্রদলকর্মী রিফাত, মো. আবু হানিফা, উত্তর জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের ধর্মবিষয়ক সম্পাদক ও ইউপি সদস্য জাহাঙ্গীর আলম, যুবদলকর্মী মজিবুর রহমান, কামাল মিয়া ও শাজাহান মিয়া।

মেয়রের আত্মীয় উপজেলার ভাংনামারী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ নেজামুল হক বলেন- রায়ে সত্যের জয় হয়েছে। আদালতের প্রতি আমাদের শতভাগ আস্থা ছিল, আমরা ন্যায় বিচার পেয়েছি।

গৌরীপুর পৌর যুবলীগের সভাপতি মেহেদী হাসান মিথুন বলেন- মেয়রকে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো হয়েছিল। এ রায়ে সত্য ও জনতার জয় হয়েছে, আমরা খুশি।

গৌরীপুর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আলী আহাম্মদ খান পাঠান সেলভী বলেন- আমাদের দৃঢ় বিশ্বাস ছিল, মেয়র খালাস পাবেন। তাকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো হয়েছিল।

অপরদিকে নিহত মাসুদুর রহমান শুভ্রর বাবা একেএম ডা. সিদ্দিকুর রহমান (বাবুল) বলেন- আমার ছেলেকে হত্যার প্রকৃত পরিকল্পনাকারীরা খালাস পেয়েছে, এ রায় আমরা মানি না। আমরা উচ্চ আদালতে আপিল করব।

উল্লেখ্য, গৌরীপুর উপজেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক মাসুদুর রহমান শুভ্রকে ২০২০ সালের ১৭ অক্টোবর গৌরীপুর পৌর শহরের পানমহালে কুপিয়ে হত্যা করে দূর্বৃত্তরা। বিচার চেয়ে শুভ্রর ছোটভাই আবিদুর রহমান প্রান্ত বাদী হয়ে গৌরীপুর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

পরবর্তীতে মামলাটি ডিবিতে হস্তান্তর করা হয় ও ২০২১ সালের ৫ মে ১৯ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা পুলিশের তৎকালীন অফিসার ইনচার্জ মো. শাহ কামাল আকন্দ।

গৌরীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খান আব্দুল হালিম সিদ্দিকী জানান- শুভ্র হত্যা মামলায় রায়কে কেন্দ্র করে শহরে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েনসহ বিশেষ সর্তক রয়েছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

দেখা হয়েছে: 135
ফেইসবুকে আমরা

সর্বাধিক পঠিত
সম্পাদকঃ আরিফ আহম্মেদ
মোবাইলঃ ০১৭৩৩-০২৮৯০০
প্রকাশকঃ উবায়দুল্লাহ রুমি
বার্তা বিভাগ মোবাইলঃ ০১৭১২-৬৭৮৫৫৮
ই-মেইলঃ [email protected]
অস্থায়ী কার্যালয়ঃ ১নং সি. কে ঘোষ রোড, ৩য় তলা, ময়মনসিংহ।
(৭১ টিভির আঞ্চলিক কার্যালয়)।

The use of this website without permission is illegal. The authorities are not responsible if any news published in this newspaper is defamatory of any person or organization. Author of all the writings and liabilities of the author